বৃহঃ. জানু ২৭, ২০২২

অনলাইন ডেস্কঃ
নাসা নিউজ২৪।

ফাইল ছবি।নাসা নিউজ২৪।

প্রায় এক কিলোমিটার দীর্ঘ একটি গ্রহাণু ধেয়ে আসছে পৃথিবীর দিকে। যার গতি ব্যাপক।পৃথিবীর কাছে এসে এর গতিবেদ্গ হবে সেকেন্ডে প্রায় সাড়ে ১৯ কিলোমিটার বা ঘণ্টায় ৪৩ হাজার ৭৫৪ মাইল।এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে নিউ ইয়র্ক পোস্ট।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা জানায়, শুধুই বিশালত্ব নয়। গ্রহাণুটি সভ্যতার পক্ষে বিপজ্জনক হয়ে ওঠার আরও একটি কারণ রয়েছে— গ্রহাণুটি খানিকটা ঘন ঘনই এসে পড়ছে পৃথিবীর কাছাকাছি গ্রহাণুদের কক্ষপথ সাধারণত আগেভাগে খুব একটা আঁচ করা সম্ভব না। ঘন ঘন তা বদলায়ও। কোনো গ্রহের খুব কাছাকাছি এসে পড়লে সেই গ্রহের জোরালো অভিকর্ষ বলের টানে গ্রহাণুদের আছড়ে পড়ার আশঙ্কা থাকে। কোনো এক কালে এমন এক গ্রহাণু পৃথিবীতে এসে পড়ার কারণেই ডাইনোসরদের বিলুপ্তি হয়েছিল।

নাসা জানিয়েছে, আগামী সপ্তাহে শেষের দিকে যুক্তরাষ্ট্রের এম্পায়ার স্টেট বিল্ডিংয়ের উচ্চতার চেয়ে আড়াই গুণ বেশি উঁচু যে গ্রহাণুটি পৃথিবীর খুব কাছাকাছি এসে পড়বে। যার দৈর্ঘ্যে ১ কিলোমিটার বা ৩ হাজার ২৮০ ফুট।গ্রহাণুটির নাম (৭৪৮২) ১৯৯৪ পিসি-১।নাসা জানিয়েছে, গ্রহাণুটি আবারও পৃথিবীর খুব কাছে এসে পড়বে ৮৩ বছর পর।২১০৫ সালের ১৮ জানুয়ারি।নাসার খবর এখন পর্যন্ত(৭৪৮২) ১৯৯৪ পিসি-১ এর গতিপথ যা সেই হিসাবে বলা যায় খুব কাছে এসে পড়লেও এবার হয়তো তেমন বিপদ নেই পৃথিবীর।কারণ এখনকার গতিপথ বজায় থাকলে গ্রহাণুটি খুব কাছে আসার সময় পৃথিবী থেকে তার দূরত্ব থাকবে চাঁদের দূরত্বের অন্তত ৫ গুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.